৯ জেলা একযোগে সুরু হচ্ছে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অবস্থান কর্মসুচি

চাকুরি প্রত্যাশি সুত্রে যানা যায় ২০১২ সালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে নয়টি জেলায় ৯১১টি পদে নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ২০১৩ সালের ২৬ এপ্রিল লিখিত পরীক্ষা এবং ১৭ আগস্ট মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু ফল এখনো প্রকাশ হয়নি। ২০১৪ সালে উচ্চ আদালত মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল তিন মাসের জন্য স্থগিত করলেও পরে ফল প্রকাশের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন দেশে সর্বউচ্চ অাদালত।
২০১৫ সালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর পুনরায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এ অবস্থায় ফল প্রত্যাশীরা উচ্চ আদালতে গেলে আবারো উচ্চ অাদালত মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই রায় বিরুদ্বে অাপিল করে কিন্তু অাপিল খারিজ করে চাকুরি প্রত্যাশি পক্ষে অাবারও রায় দেয়, সর্বশেষ স্বাস্থ্য মন্ত্রায়ন থেকে উপসচিব (প্রশাসন-১)এ.জেড.এম.শারজিল হাসান এর স্বাক্ষারিত (স্মারক নং প্রশা-১/এডি/২সি-৭/২০০৬/অংশ-২০/১৪২৯)স্বাস্থ্য অধিদপ্তরাধীন ৯(নয়)জেলার সিভিল সার্জন অফিসের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেনীর (১১-১২গ্রেট)জনবল নিয়োগের বিষয় মহামান্য অাপীল বিভাগের অাদেশ বাস্তাবায়ন জন্য ৬০কার্য দিবস মধ্যে সম্পূর্ন করার নিদের্শ প্রদান করে।
৯জেলার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কাউচার বলে ৬০কার্যদিবস অনেক অাগে অতিক্রম করেছে কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নিয়োগ বাস্তায়বন কোন লক্ষন দেখা যাচ্ছে না,তাই ৯জেলা একযোগে অামাদের অবস্থান কর্মসুচি অনির্দিষ্ট কাল চলবে।
৯জেলা একযোগে সুরু হচ্ছে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অবস্থান কর্মসুচি।
১৪অক্টোবে রবিবার সকালে ৯টা থেকে একযোগে নোয়াখালী-নারায়নগঞ্জ-ময়মনসিংহ-ফরিদপুর-নওগাঁ-যশোর-নড়াইল-সাতক্ষীরা-বরিশাল সিভিল সার্জেন কার্যালয়ে সামনে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অবস্থান কর্মসুচি ডাক দিয়েছে চাকুরী প্রত্যাশিরা ।


No comments

Powered by Blogger.